সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০২:২২ অপরাহ্ন

আফগানিস্তানকে হারিয়ে সেমির স্বপ্ন টিকে থাকলো ভারতের

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আফগানিস্তানের বোলিং ব্যর্থতার পর ব্যাটিং দুর্বলতায় ভাগ্য খুলেছে ভারতের। বিরাট কোহলিরা বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়ে সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে।

গতকাল বুধবার (৩ নভেম্বর) টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ২১০ রানের পাহাড় গড়ে ভারত।

জবাবে ২১১ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে আফগানরা ১৪৪ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়। ফলে ৬৬ রানের বিশাল ব্যবধানে ম্যাচ জয় করে কোহলির দল। অবশ্য এটিই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের প্রথম জয়। সেমিতে খেলতে হলে আরো বাকি দু’টি ম্যাচও জিততে হবে কোহলিদের।

এ বারের টি২০ বিশ্বকাপে প্রথম বার জয়ের মুখ দেখল ভারত। আফগানিস্তানকে ৬৬ রানে হারিয়ে কিছুটা আশা বাঁচিয়ে রাখল তারা। পাঁচ বছর পর আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচে উইকেট পেলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

ম্যাচ জিতলেও, টস হেরে গিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। প্রথমে ব্যাট করতে বাধ্য হয় ভারত। তবে অন্য দিনের মতো টস হারা মানে ম্যাচ হারা রেকর্ড বুধবার বাজেনি। রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের দাপুটে ব্যাটিং ভারতকে শক্ত ভিতের ওপর দাঁড় করিয়ে দেয়। শুরু থেকেই মারতে শুরু করেন তারা। রেয়াত করেননি রশিদ খানকেও।

পাওয়ার প্লে-তে ৫৩ রান করে ভারত। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের সেরা ওপেনিং জুটির রেকর্ড গড়েন রোহিত-রাহুল। ১৪.৪ ওভারে রোহিত ও রাহুল ১৪০ রান তোলেন। দুই ওপেনারই অর্ধশতরান করেন। ৪৭ বলে ৭৪ রান করে আউট হন রোহিত। রাহুল করেন ৪৮ বলে ৬৯ রান।

তারা ফিরে গেলেও ভারতের রানের গতি কমতে দেননি ঋষভ পন্থ ও হার্দিক পান্ডে। রশিদের চার ওভারে ৩৬ রান নেয় ভারত। সব থেকে বেশি মার খেয়েছেন নবীন উল হক। তার চার ওভারে ওঠে ৫৯ রান। পন্থ ও হার্দিক দু’জনেই ১৩টি করে বল খেলেছেন। পন্থ করেন ২৭ রান, হার্দিক করেন ৩৫ রান। সবমিলিয়ে ২ উইকেট হারিয়ে ভারত নির্ধারিত ২০ ওভারে সংগ্রহ করে ২১০ রান।

জবাবে ব্যাট করতে নামা আফগানিস্তানকে শুরুতেই ধাক্কা দেন মোহাম্মদ শামি। মোহাম্মদ শাহজাদকে শূন্য রানে ফিরিয়ে দেন তিনি। অন্য ওপেনার হজরতউল্লাহ জাজাইকে ফেরান যশপ্রীত বুমরা। ১৩ রানে দুই উইকেট হারায় আফগানিস্তান। রান করলেও একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে মোহাম্মদ নবীর বাহিনী।

শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৪৪ রান তোলে আফগানিস্তান। ফলে ৬৬ রানে ভারতের কাছে হারতে হলো তাদের। নবীদের হয়ে সবচেয়ে বেশি রান করেন করিম জনাত। ২২ বলে ৪২ রান করেন তিনি।

ভারতের হয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেন মোহাম্মদ শামি। তিন উইকেট নিলেও ৩২ রান দিয়েছেন ভারতীয় পেসার। অশ্বিন নিয়েছেন দু’টি উইকেট। ভারতকে চিন্তায় রাখেন শার্দূল ঠাকুর। তিন ওভার বল করে ৩১ রান দিয়েছেন তিনি। একটিও উইকেট পাননি তিনি।

টানা ২ ম্যাচ হেরে সেমিফাইনালের দৌড় থেকে অনেকটাই পিছিয়ে পরেছিল ভারত। বিপরীতে নিজেদের প্রথম ৩ ম্যাচে ২ জয়ে ভালো অবস্থানে ছিল অফগানিস্তান। দুই দল বুধবার একে অন্যের মুখোমুখি হয়। যেখানে হারলে শেষ হয়ে যেত ভারতের বিশ্বকাপ মিশন। অপর দিকে সেমিতে যেতে আফগানদের জন্য এ ম্যাচে জয় পাওয়া জরুরি ছিল।

বুধবার আবুধাবিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অবশ্য নিজেদের শক্তি প্রদর্শনই করল ভারত। আফগান বোলারদের পিটিয়ে নিজের ক্ষমতা জাহির করলেন রোহিম শর্মা ও লোকেশ রাহুলরা। এই দুই ওপেনারের ব্যাটিং তাণ্ডবে আফগানদের বিপক্ষে ২১০ রানের পাহাড় গড়ে ভারত।

ভারত একাদশ : কেএল রাহুল, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, সুরিয়া কুমার যাদ, রিশভ পান্টস, হার্দিক পাণ্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, শার্দুল ঠাকুর, মোহাম্মদ শামি ও জাসপ্রিত বুমরাহ।

আফগানিস্তান একাদশ : হজরতউল্লাহ জাজাই, মোহাম্মদ শাহজাদ, রহমানউল্লাহ গুরবাজ, নাজিবউল্লাহ জাদরান, মোহাম্মদ নবী, করিম জানাত, গুলবাদিন নায়েব, শরাফউদ্দিন আশরাফ, রশিদ খান, নবীন-উল হক ও হামিদ হাসান।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.