শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১০:৪৫ পূর্বাহ্ন

আমি সিলেটবাসির কাছে কৃতজ্ঞ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিলেটের সর্বস্তরের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

চারদিনের সফর শেষে শুক্রবার (১৮ মার্চ) সিলেট ত্যাগকালে এক বিবৃতিতে সাবেক অর্থমন্ত্রী এ কথা জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন- প্রায় দুই বছর পর গত ১৪ মার্চ আমি সিলেটে আসি। এর ঠিক দুই বছর আগে ২০২০ সালে জাতির পিতা জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আমি সিলেটে এসেছিলাম। মাঝখানে দুটি বছর মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে আমি সিলেটে আসতে পারিনি। আমি নিজেও এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলাম। যাই হোক দুই বছর পর এবারো জাতির পিতার জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সিলেটে থাকতে পেরে এবং সিলেটের আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও আমার দুই নাতনীকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের কেক কাটতে পেরে এবং শিশুদের নিয়ে জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত।

একই সাথে, ১৪ মার্চ রাতে সিলেটে পৌঁছার পর থেকে গত চারদিন সিলেট আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, সিটি কর্পোরেশন, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সর্বোপরি সিলেটের সকল স্তরের জনগণ আমার প্রতি যে ভালোবাসা, সম্মান দেখিয়েছেন এরজন্য আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। ৮৮ বছর বয়সে এসে জন্মভূমিতে এমন সম্মান পাওয়া সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার।

দীর্ঘদিন ধরেই সিলেটে আসার জন্য আমার খুব ইচ্ছা হচ্ছিল। প্রায়ই আমার ছেলে শাহেদকে বলতাম আমাকে সিলেটে নিয়ে যাওয়ার জন্য। কিন্তু চিকিৎসকদের অনুমতি না থাকায় আসা হয়নি। গত ৫ মার্চ রুটিন চেকআপের জন্য আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছয়দিন হাসপাতালে থাকার পর গত ১১ মার্চ বাসায় ফিরেই আমি সিলেটে আসার জন্য আমার ছেলেকে বলি। পরে সে ১৪ মার্চ আমাকে সিলেটে নিয়ে আসে।

দুইবছর পর সিলেটে এসে দেখলাম এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও সিলেটে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে এবং প্রচুর উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চলমান রয়েছে। এজন্য আমি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

এই চারদিনে সিলেটের অনেক প্রিয়জনের সাথেই দেখা হয়েছে, আবার অনেকের সাথেই দেখা করার সুযোগ হয়নি। ইনশাআল্লাহ খুব শিগগিরই আবার সিলেটে আসব, দেখা হবে, কথা হবে সকলের সাথে। আপনাদের জন্য দোয়া রইল। আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.