সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন

খবরের শিরোনাম:

উত্তরাঞ্চলে জেঁকে বসেছে শীত : তাপমাত্রা ১০ নিচে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  প্রচন্ড ঠান্ডায় কাঁপছে দেশের উত্তরাঞ্চল। জেঁকে বসেছে শীত। এতে ব্যাহত হচ্ছে জনপদের স্বাভাবিক জনজীবন। ঘর থেকে বের হতে পারছে না মানুষ। বেশি বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে তারা কাজে যেতে পারছেন না। আবহাওয়া অফিস বলছেন, তাপমাত্রা আরও কমবে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৬টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে তেঁতুলিয়ায়। সেখানে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দিনাজপুরসহ আশপাশের অঞ্চল গুলোতে তাপমাত্রা আরো কমতে শুরু করেছে। একই সাথে কিছু কিছু অঞ্চলে মৃদু শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত রয়েছে। এ কারণে শীতের তীব্রতা বেড়েছে। এতে সবচেয়ে বিপাকে পড়েছে ছিন্নমূল খেটে খাওয়া মানুষ। আবহাওয়া বিদরা জানান, সুদুর সাইবেরীয়া থেকে হিমেল বাতাস দেশে প্রবেশ করার কারনে শীতের তীব্রতা বেড়েছে। সোমবার নওগাঁয় বদলগাছীতে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।

দিনাজপুর আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তোফাজ্জল হোসেন জানান, দিনাজপুরে মঙ্গলবার সকাল ৬টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে দেশের সর্বোত্তরের উপজেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অফিস জানায়, আগামী ৯ থেকে ১০ তারিখের মধ্যে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর থেকে শীত আরও বেশি পড়বে। আকাশ পরিস্কার হওয়ার কারণে কুয়াশার পরিমাণ বেড়েছে বলেও জানান তারা। হিমেল হাওয়ার কারণে শীতের প্রকোপ আরও বেড়েছে। সোমবার থেকে পঞ্চগড়ে হিমেল হাওয়া ও ঘন কুয়াশা বৃদ্ধি পেয়েছে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে সূর্য উঁকি দিলেও কমছে না শীত। ঘন কুয়াশার কারণে রাস্তাঘাটে যানবাহন চলাচল করছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। এ অবস্থায় কাজে বেড়াতে পারছে না শ্রমজীবি মানুষেরা। দুর্ভোগ বাড়তে শুরু করেছে হত দরিদ্র পরিবারগুলোর শিশু ও বৃদ্ধদের। কাজে যোগ দিতে না পারায় খাবারও জোগাড় হচ্ছে না। গরম কাপড়ের অভাবে প্রচন্ড শীতে তাদের টিকে থাকা দায় হয়ে পড়েছে। এদিকে প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে শীতকালীন রোগের প্রার্দুভাব বেড়েছে। হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। রোগীদের মধ্যে বেশির ভাগই শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তি। একই চিত্র কুড়িগ্রামেও। কুয়াশা আর হিমেল ঠান্ডা হাওয়ার কারণে বিপর্যস্ত এখানকার জনজীবন। সোমবার সকালে এ জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.