মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:২২ অপরাহ্ন

খবরের শিরোনাম:
শায়েস্তাগঞ্জ ইন্টারনেট ব্যবসা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক ভিডিওকলে মাধবপুরের রেহানাকে বাঁচানোর আকুতি, ‘আমি আর সহ্য করতে পারতেছি না’ মৌলভীবাজারে চা-শ্রমিকের ছেলের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার নবীগঞ্জ উপজেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির মাসিক সভায় এমপি কেয়া চৌধুরী আড়াই কোটি টাকার সার-বীজ বিনামূল্যে বিতরণ সার চাওয়ায় কৃষকদের হত্যা করে বিএনপি -এমপি আবু জাহির উপজেলা নির্বাচনে নবীগঞ্জে ১৯ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা নিয়মিত খেলাধূলা আয়োজনে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে-এমপি আবু জাহির দেশে হিটস্ট্রোকে আরও ৩ জনের মৃত্যু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ব্যাটারি কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৯ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল

একটি সেতুর অভাবে ৩ উপজেলার মানুষের ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মাত্র একটি সেতুর অভাবে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন ৩ উপজেলার মানুষ। মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের স্মৃতি বিজড়িত কপোতাক্ষ নদের ওপর ত্রিমোহিনী ঘাটের বাঁশের সাঁকোটি ভেঙে গিয়ে জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। এর ফলে সাধারণ মানুষের পারাপার হওয়া চমর ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন যাবৎ এমন বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হলেও যেনো বিষয়টি দেখার কেউ নেই? এমন অভিমত ব্যক্ত করেছেন, স্থানীয় সাধারণ মানুষ।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যশোরের কেশবপুর উপজেলাধীন মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের স্মৃতি বিজড়িত কপোতাক্ষ নদের ওপর তিন উপজেলার সীমান্তবর্তী ত্রিমোহিনী ঘাটে এ সাঁকোটি অবস্থিত। এ ঘাট এলাকা দিয়ে কেশবপুর, মনিরামপুর ও কলারোয়াসহ তিন উপজেলার হাজার হাজার মানুষের পারা-পারের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে সাঁকোটি ব্যবহার হয়ে থাকে। দুই যুগের অধিক আগে স্থানীয় লোকজনের উদ্যোগে কেশবপুরের ত্রিমোহিনী ও কলারোয়ার দেয়াড়ার কাশিয়াডাঙ্গা বাজার সংলগ্ন ঘাটে সাঁকোটি তৈরি করেন। এক সময়ে খোরস্রোতা প্রবহমান এ নদ পারাপারের খেয়ার নৌকা ব্যবহার করা হতো। সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গ্রাম্য অবকাঠামো উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলেও যেনো আজও উন্নয়নের কোনো ছোঁয়া লাগেনি প্রত্যন্ত ওই এলাকায়।

কপোতাক্ষ নদের ওপর ত্রিমোহিনী ঘাটের বাঁশের সাঁকোটি ভেঙে গিয়ে জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে।

কপোতাক্ষ নদের ওপর ত্রিমোহিনী ঘাটের বাঁশের সাঁকোটি ভেঙে গিয়ে জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে।

অনেকেই অভিযোগ করে জানান, প্রায় কে বা কারা মাপতে আসেন, তাতে মনে হয় যে খুব তাড়াতাড়ি হয়তো বা ব্রিজটি নির্মাণ করবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। কিন্তু মাপের পর আর কোনো খবর থাকে না? এ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হচ্ছে। আর যোগাযোগ ব্যবস্থা বেহাল থাকার কারণে এলাকার কৃষিজীবী মানুষ উন্নয়ন অগ্রগতি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

কৃষি প্রধান ঐ এলাকায় কৃষকের উৎপাদিত ফসল ধান, পাট ও মাছসহ বিভিন্ন কৃষিজাত পন্য উপযুক্ত বাজার জাতের অভাবে ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তারা। এছাড়া স্কুল কলেজে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী, শিক্ষক, শ্রমজীবী মানুষ, ব্যবসায়ীদের পণ্য সামগ্রী পারাপার যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে। অসুস্থ ও মুমূর্ষু রোগীর চিকিৎসা সেবা নিতে সময় কালক্ষেপণ হয়ে কাক্ষিত সেবা পেতে বঞ্চিত হয় সাধারণ মানুষ।

কৃষক শাহাদাত হোসেন, ইসমাইল হোসেন, মধু সরদার,আওয়ামী লীগ নেতা নাজমুল হক মিল্টন, ইউপি সদস্য হারুনর রশীদ খোদা বকস্ গাজী, আফসার উদ্দিন, ডা. আল-মামুন, শিক্ষক নাজমুল ইসলামসহ এলাকাবাসী জনদুর্ভোগ লাঘবে একটি ব্রিজ নির্মাণের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জোরদাবি জানিয়েছেন।

ত্রিমোহিনী ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনিসুর রহমান ও দেয়াড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহাবুব রহমান মফে জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ ত্রিমোহিনী ঘাট একটি ব্যস্ততম স্থান। প্রতিনিয়ত হাজার হাজার মানুষ অতিকষ্টে এ ঘাট দিয়ে পারাপার হয়ে থাকে। ফলে জনস্বার্থে স্থায়ীভাবে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন চেয়ারম্যান।

এ বিষয়ে কেশবপুর উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌল দফতরের প্রকৌশলী মো. সাইফুল ইসলাম জানান, জনদুর্ভোগ লাঘবে ঐ স্থানে ব্রিজ নির্মাণের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট দফতরে প্রাক প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে ব্রিজটি নির্মাণ সম্ভব হবে।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.