রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০২:১৬ অপরাহ্ন

কবি শামসুর রাহমানের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি শামসুর রাহমানের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ। ১৯২৯ সালের ২৩ অক্টোবর তিনি পুরনো ঢাকার মাহুতটুলিতে জন্মগ্রহণ করেন।

বাবা মুখলেসুর রহমান চৌধুরী ও মা আমেনা খাতুন। পৈতৃক বাড়ি নরসিংদী জেলার রায়পুরা থানার পাড়াতলী গ্রামে।

তাঁর কবিতায় ভাষা আন্দোলন, আইয়ূব খানের সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলন এবং পাকিস্তানিদের অত্যাচার ও শাসনের প্রতিবাদ এবং স্বাধীনতা সংগ্রামের কথা উঠে এসেছে। তিনি ছিলেন জনতার কবি। স্বাধীনতার কবি। অসাম্প্রদায়িক চেতনার কবি।

তার কবিতা মৌলবাদ, কুপমণ্ডকতা ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদী করার সাহস যোগায়, আলোয় পথ দেখায়। শামসুর রাহমানকে বলা হয় কবিতার বরপুত্র। দেশের ও দেশের মানুষের বিরুদ্ধে কোন অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠলে, কোন অনাচার হতে দেখলে নিজেকে একাত্ম করে নিতেন এবং তার জবাব দিতেন কবিতার ভাষায়।

মৃত্যুর ৭ বছর আগে ১৯৯৯ সালের ১৮ জানুয়ারি দুর্বৃত্ত দ্বারা আক্রান্ত হয়েছিলেন দেশের পক্ষে কথা বলা এই কবি। রাজধানীর শ্যামলীর বাড়িতে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে আঘাত করে একদল দুর্বৃত্ত। অবশ্য গুরুতর জখম হলেও ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন তিনি।

তিনি একাধারে কবি, সাংবাদিক, গীতিকার ও কলামিষ্ট। দীর্ঘ ছয় দশক কবি এ সব ক্ষেত্রে অত্যন্ত সাবলীল ধারায় লেখালেখি করে বাংলা সাহিত্যে অসাধারণ অবদান রাখেন।

তার কবিতার পংক্তি আজো মানুষের মুখে মুখে উচ্চারিত হয়। ‘স্বাধীনতা তুমি’ শিরোনামের কবিতায় তিনি লেখেন- স্বাধীনতা তুমি রবিঠাকুরের অজর কবিতা, অবিনাশী গান/ স্বাধীনতা তুমি কাজী নজরুল ঝাঁকড়া চুলের বাবরি দোলানো মহান পুরুষ,/ সৃষ্টিসুখের উল্লাসে কাঁপা- স্বাধীনতা তুমি শহীদ মিনারে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির উজ্জ্বল সভা/ স্বাধীনতা তুমি পতাকা-শোভিত শ্লোগান-মুখর ঝাঁঝালো মিছিল।/ স্বাধীনতা তুমি ফসলের মাঠে কৃষকের হাসি।

এসব কবিতা আমাদের চেতনায় আজো নাড়া দিয়ে যায়। দেশের পক্ষে দাঁড়াতে সাহসী করে তোলে। তার কবিতা যেন গণমানুষেরই কবিতা। ৬০টি কাব্যসহ তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা শতাধিক।

বিষয়:

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.