রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০২:৫৫ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ায় একসাথে পাঁচ সন্তানের জন্ম

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে জমজ পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক গৃহবধূ।

আজ মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) আনুমানিক সকাল ১০টার দিকে প্রথমবারের মতো একই সঙ্গে পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়ে রীতিমতো আলোচনায় আসেন সাদিয়া খাতুন (২৪) নামের ওই গৃহবধূ।

গর্ভধারণের পাঁচ মাসের মাথায় ভূমিষ্ট হওয়ায় শিশুদের ওজন খুব কম হয়েছে। পাঁচ শিশুর মধ্যে রয়েছে চার কন্যা ও এক পুত্র সন্তান। বর্তমানে মা সুস্থ থাকলেও শিশুরা কিছুটা ঝুঁকিতে রয়েছে। সাদিয়া খাতুন কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউপি’র পান্টি গ্রামের কলেজপাড়ার সোহেল রানার স্ত্রী।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ৫-৬ মাসের মাথায় সাদিয়া সন্তান প্রসব করেছেন। একসঙ্গে পাঁচ বাচ্চার প্রসবে অনেক ঝুঁকি ছিলো। মা সুস্থ থাকলেও ওজন কম হওয়ায় ঝুঁকিতে রয়েছে শিশুরা। শিশুদের দেখতে হাসপাতালের রোগী, রোগীর স্বজন ও উৎসুক জনতার ভিড় লক্ষ্য করা গিয়েছে ।

সাদিয়ার আত্মীয় রাবেয়া বলেন, সোমবার রাত ১০টায় হাসপাতালে আসি। আমরা খুবই খুশি। নরমালে বাচ্চা হয়েছে। শিশুর মাও সুস্থ আছে।

সাদিয়ার স্বামী সোহেল রানা জানান, তিনি ২০১৬ সালের ৩০ জুলাই কুমারখালী উপজেলার যদুবয়রা ইউনিয়নের বহলবাড়িয়া গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে সাদিয়া খাতুনকে বিয়ে করেন। তিনি একই এলাকার সামাদ আলীর ছেলে।

তিনি আরও বলেন, খুবই ভালো লাগছে। অনুভূতি প্রকাশের ভাষা পাচ্ছি না। আমার স্ত্রী ভালো আছে। কিন্তু শিশুর ওজন কম হওয়ায় ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে চিকিৎসকরা। শিশুদের অক্সিজেন চলছে। তারা শিশু ওয়ার্ডের দুই নম্বর রুমের নবজাতক ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছে।

দায়িত্বরত চিকিৎসক ও সেবিকারা বলেন, সকাল ১০টার দিকে ওই গৃহবধূ পাঁচ সন্তানের জন্ম দেন। তাকে সোমবার রাত ১০টার দিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মা সুস্থ রয়েছে কিন্তু শিশুরা ঝুঁকিতে আছে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক শাহীন আক্তার সুমন বলেন, বাচ্চাদের সুস্থ করে তোলার জন্য চিকিৎসা চলছে। তবে ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। তাদের ওজন কম হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজের শিশু বিভাগে অথবা শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বাচ্চাগুলোর ওজন ৫০০-৬০০ গ্রাম। তবে মা সুস্থ আছে।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.