রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:১৯ পূর্বাহ্ন

জামালগঞ্জের রাজাপুর সেতুর এপ্রোচে ভাঙ্গন, দুর্ঘটনার আশঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ সাচনা বাজার-বেহেলী সড়কের রাজাপুর সেতুর সম্মুখস্থল ভেঙ্গে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে চলছে শত শত যানবাহন। বেহেলী বাজারে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় থাকায় এ সড়কটি এমনিতেই জনগুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়া সাচনা বাজার-বেহেলী সংযোগ সড়ক দিয়ে দুই উপজেলার অন্তত ৩০-৪০টি গ্রামের মানুষ নিয়মিত চলাচল করে থাকে। যাতায়াতে জনগুরুত্বপূর্ণ এ সেতুর এপ্রোচ ভেঙ্গে বেহাল অবস্থায় পতিত হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরদারি না থাকায় জনমনে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এদিকে এ সড়কের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টের বেশ কয়েকটি নির্দেশিকা বোর্ড ভেঙ্গে মাটিতে নুয়ে পড়েছে। এতে উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নজরদারি নেই বললেই চলে।

গতকাল সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সাচনা বাজার-বেহেলী সড়কের রাজাপুর সেতুর বেহেলীমুখের এপ্রোচ অংশ ভেঙ্গে হেলে পড়েছে। সেতু থেকে সড়কে নামার খাড়া অংশটুকু পাড়ি দিতে গিয়ে চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়তে হচ্ছে যানবাহনে চলাচলরত সাধারণ মানুষকে। যেকোন সময় গাড়ি উল্টে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন চালক-যাত্রী উভয়েই। এছাড়া সেতুর দক্ষিণ অংশে ভাঙ্গন তেমনটা না থাকলেও ধীরে ধীরে তা ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম পরিলক্ষিত হয়েছে। তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে না পারলে পরিস্থিতি আরও প্রকট আকার ধারণ করবে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

জানা যায়, তাহিরপুর ও জামালগঞ্জ উপজেলার বেহেলী, বেহেলী আলীপুর, মশালঘাট, তিলকই, ইসলামপুর, চন্ডীপুর, প্রকাশনগর, রাধানগর, রহমতপুর, হরিনগর, পুটিয়া, বাগানী, কুমড়িয়া, রাজাপুর, চিনামারা, শলাচ‚ড়া, বাগহাঁটি, রহিমাপুর, রহিমাপুর গুচ্ছগ্রাম, আরশিনগর, গোপালপুর, নিতাইপুর, বদরপুর, ইনাতনগর, জামালগড়, টেকাটুকিয়া, বীননগর, লক্ষ্মীপুর, উজান তাহিরপুর, ভাটি তাহিরপুরসহ অন্তত ৪০টি গ্রামের মানুষ যাতায়াত করে থাকেন সাচনা বাজার-বেহেলী সংযোগগামী সড়কের রাজাপুর সেতু দিয়ে। বর্তমানে সেতুর এক অংশের সম্মুখস্থলে ভাঙ্গন দেখা দেওয়ায় হুমকির মধ্যে পড়েছে যাতায়াত। এ অবস্থায় সাধারণ মানুষ সেতুর ভঙ্গুর অংশটুকু দ্রুত মেরামতের জোর দাবি জানিয়েছেন।

বেহেলী ইউনিয়নের মশালঘাট গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা পরেশ চন্দ্র তালুকদার বলেন, রাজাপুর সেতুর উত্তর অংশে উঠতে গিয়ে যে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়েছে তাতে যেকোন সময় গাড়ি উল্টে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। জরুরী ভিত্তিতে এই ভাঙ্গন ঠিক করা দরকার। নইলে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মানুষ আহত-নিহত হতে পারে।

রহিমাপুর গুচ্ছগ্রামের টমটম চালক ফজলুল করিম জানিয়েছেন, গত রবিবার সেতুয় উঠতে গিয়ে তার গাড়ি উল্টে যায়। ভাগ্য ভালো তখন গাড়িতে কোন যাত্রী ছিল না। যদি যাত্রী থাকত তাহলে হতাহতের ঘটনা ঘটে যেতে পারত বলে জানিয়েছেন তিনি।

বেহেলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অসীম চন্দ্র তালুকদার বলেন, এই ব্রিজের এপ্রোচের দুই অংশ ঠিক রাখতে হলে প্রটেক্টিভ ওয়াল দিয়ে কাজ করতে হবে। নইলে বর্ষার পানিতে প্রতি বছরই ভাঙতে থাকবে। শুধু রাজাপুরের ব্রিজই না গুচ্ছগ্রাম-আলীপুর অংশের ব্রিজটাতেও সমস্যা আছে। এটাও ঠিক করতে হবে। রাজাপুর ব্রিজের ব্যাপারে আমি ইউএনও স্যারের সাথে কথা বলেছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেব বলেন, হ্যাঁ, ভাঙ্গনকৃত সেতুর অংশটুকু আমি দেখে এসেছি। এটা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব এলজিইডির। আমার পক্ষ থেকে এলজিইডিকে বলা হয়েছে বিষয়টি দেখার জন্য।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.