মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০১:২৭ অপরাহ্ন

জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় কুমকুম

স্টাফ রিপোর্টার,হবিগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত আসনে সদস্য পদে নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে ইতোমধ্যে তুমুল আলোচনায় এসেছেন সৈয়দা শরীফা আক্তার কুমকুম। শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত থাকায় একজন যোগ্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন সবার মুখে।
জানা যায়, আগামী ১৭ই অক্টোবর হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের নির্বাচনে নতুন সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে হবিগঞ্জ সদর, লাখাই ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভা নিয়ে ২নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ওয়ার্ড গঠিত হয়েছে। ওই ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদের প্রার্থী হয়েছেন সৈয়দা শরীফা আক্তার কুমকুম। গত ১৮ সেপ্টেম্বর যাচাই-বাছাইয়ে তার মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষনা করা হয়েছে। সৈয়দা শরীফা আক্তার কুমকুম হবিগঞ্জ শহরে অবস্থিত জে, কে এন্ড এইচ, কে হাইস্কুল এন্ড কলেজের একজন স্বনামধন্য সিনিয়র শিক্ষক হিসাবে সর্বমহলে তার জনপ্রিয়তা রয়েছে। মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষকতা পেশার পাশাপাশি তিনি একজন নারী নেত্রী ও সমাজকর্মী। রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে তিনি হবিগঞ্জ পৌর মহিলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ছাত্র জীবন থেকে খেলাধূলা, স্কাউটসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। সম্প্রতি তিনি হবিগঞ্জ শহরস্থ টাউন মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। তাছাড়াও সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে দাঁড়াতে তার বাবার নামে প্রতিষ্ঠা করেছেন সৈয়দ আব্দুল মুকিত ফাউন্ডেশন। এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে তিনি বিভিন্ন সময়ে শিক্ষা প্রসারে মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দান, খেলাধুলার আয়োজন, ঈদ বস্ত্র বিতরণ, শীত বস্ত্র বিতরণ ইত্যাদি কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকেন।
বিশ্বব্যাপী মহামারী করোনা দূর্যোগ কালে হবিগঞ্জ শহরে তিনি একজন সাহসী নারী করোনা যোদ্ধা হিসাবেও পরিচিতি লাভ করেন। প্রাকৃতিক দূর্যোগে ও বন্যা কালীন সময়ে অসহায় মানুষের জন্য খাবার ও ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করে তিনি মানুষের অনেক প্রশংসা অর্জন করেছেন। ব্যক্তিগত জীবনে অত্যন্ত সহজ সরল ও সদালাপী ও পরোপকারী সৈয়দা শরীফা আক্তার কুমকুম বি.কম. (অনার্স) বি.এড ডিগ্রী গ্রহন করে শিক্ষকতা পেশায় সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি বর্তমানে তিনি এমবিএ অধ্যায়নরত।
সৈয়দা শরীফা আক্তার কুমকুম জানান, ব্যক্তি জীবনে তার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। জনসেবাকে তিনি মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের উসিলা মনে করেন। সকলের দোয়া, ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়ে নির্বাচিত হলে তিনি নিজেকে সার্বক্ষণিক জনসেবায় উৎসর্গ করতে প্রস্তুত রয়েছেন। নির্বাচনে তিনি সকল জনপ্রতিনিধিদের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.