সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০১:১০ পূর্বাহ্ন

খবরের শিরোনাম:

জৈন্তাপুরে লাশ দাফনের ৮ ঘন্টা পর আবারও একই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিলেটে জৈন্তাপুরে ৮ ঘণ্টার ব্যবধানে উদ্ধারকৃত দুটি লাশকেই একজনের বলে দাবি করেছেন নিখোঁজ এক ব্যক্তির স্বজনরা। এরমধ্যে একটি লাশের দাফন হয়ে গেছে। আরেকটি আছে হাসপাতালের মর্গে।

বিষয়টি নিয়ে জৈন্তাসহ সিলেটজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ বলছে, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।জানা গেছে, জৈন্তাপুর উপজেলার ঘাটেরচটি গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে ডালিম আহমদ গত ৫ মার্চ নিখোঁজ হন। ৬ মার্চ ডালিমের বাবা জৈন্তাপুর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ৭ মার্চ বিকাল ৩টায় জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশ ঘাটেরচটি বিলের তারেকের পুকুর থেকে পা বাঁধা অবস্থায় একটি লাশ উদ্ধার করে। এ সময় এলাকাবাসী ও বাচ্চু মিয়া এ লাশ ডালিমের বলে শনাক্ত করেন।

সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে ৮ মার্চ বিকেল সাড়ে ৪টায় চিকনাগুল এলাকায় শত শত মুসল্লির উপস্থিতিতে প্রথম চিহ্নিত ডালিমের লাশের জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে, ওই লাশ দাফনের পর পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন এবং হত্যায় ব্যবহৃত ছোরা উদ্ধার করতে একই দিন (৮ মার্চ) রাত ১০টার দিকে চিকনাগুল ইউনিয়নের ঘাটেরচটি নয়াটিলা জামে মসজিদ সংলগ্ন কৃষি জমিতে মাটি চাপা অবস্থায় আরেকটি লাশ উদ্ধার করে। এ সময় হত্যায় ব্যবহৃত ছোরা ও নিহতের গেঞ্জি, শার্ট-প্যান্ট উদ্ধার করে পুলিশ।

দ্বিতীয়বার উদ্ধারকৃত লাশের বিভিন্ন আলামত বিশ্লেষণ করে সেই বাচ্চু মিয়ার পরিবারের সদস্যদের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে লাশটি ডালিমের বলে শনাক্ত করে পুলিশ। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য ওসমানী হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

এ ঘটনায় এলাকাসহ পুরো জৈন্তাপুরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়দের প্রশ্ন- দ্বিতীয়টি যদি বাচ্চু মিয়ার ছেলে ডালিমের হয় তবে প্রথম লাশটি কার? ডালিম পরিচয়ে দাফনকৃত লাশের পরিচয় কী?

এ বিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার ওসি গোলাম দস্তগীর আহমেদ বলেন, নিখোঁজের বাবা বাচ্চু মিয়া ও ডালিমের নিকট আত্মীয়দের দাবির প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্তের পর বিলের পুকুর হতে উদ্ধারকৃত লাশটি ডালিমের চিহ্নিত হয় এবং পরে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়। এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য জানতে গিয়ে উদ্ধার করা হয় দ্বিতীয় লাশ। এ সময় নিহতের গেঞ্জি, শার্ট-প্যান্টও উদ্ধার করি। নিহতের ফিঙ্গার যাচাই করে জানতে পারি- দ্বিতীয় লাশটি নিখোঁজ ডালিমের।

তিনি বলেন, হাওরের পুকুর থেকে উদ্ধার হওয়া লাশটি ডালিমের নয়। দাফনকৃত অজ্ঞাত পরিচয়ের লাশ শনাক্তের জন্য অনুসন্ধান চলছে। সেই সঙ্গে দুটি লাশের মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে পুলিশের কয়েকটি টিম কাজ করছে।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.