সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন

প্রকৌশলী অমিয় চক্রবর্তী ছিলেন একজন আদর্শ মানুষ এমপি আবু জাহির

ইশতিয়াক শোভনঃ  প্রকৌশলী অমিয় চক্রবর্তী ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিত প্রাণ কর্মী ও দায়িত্বশীল নেতা। একই সাথে তিনি ছিলেন সদর উপজেলার লস্করপুর ইউনিয়নের একজন আদর্শ মানুষ। অসা¤প্রদায়িক চেতনার ধারক অমিয় চক্রবর্তী সমাজ সেবায়ও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেছেন। একজন শিক্ষানুরাগী হিসেবে তিনি তাঁর প্রয়াত পিতা শিক্ষক রাজেন্দ্র চক্রবর্তীর নামে ছাত্রবৃত্তি চালু ও বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিজ অর্থায়নে শহীদ মিনার স্থাপন করে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন। তাঁর প্রয়াণে আমরা যেমন একজন রাজনীতি সচেতন ব্যক্তিকে হারিয়েছি, তেমনি হারিয়েছি অসহায় মানুষের একজন প্রকৃত বন্ধুকে। সরকারি চাকুরি থেকে অবসর নেয়ার পর আমরা তাঁকে জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা হিসেবে সম্পৃক্ত করেছিলাম। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমাদের, অমোঘ মৃত্যুর কাছে তাঁকে সহসাই হার মানতে হলো গতকাল শনিবার বিকেল ৩টায় প্রকৌশলী অমিয় চক্রবর্তী স্মরণ সভা ও মৈত্রী জ্ঞান উৎসবের উৎসাহ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট মোহাম্মদ আবু জাহির তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, ‘মৈত্রী সঞ্চয়ী সমিতি’ লস্করপুর, হবিগঞ্জের কর্তৃপক্ষকে এমন একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় সাধুবাদ জানান। ভবিষ্যতে সময় সুযোগ পেলে এমন অনুষ্ঠানে আবারও যোগদান করবেন বলে জানান এবং মন্দির প্রাঙ্গণে একটি ‘নাটমন্দির’ নির্মাণকল্পে ৫ লাখ টাকা সরকারি অনুদান প্রদানের ঘোষণা দিলে উপস্থিত সকলে করতালি দিয়ে স্বাগত জানান। সমিতির সভাপতি বাবু হিরণ¥য় দেব সুধার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো. আলমগীর চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইদুর রহমান, বিশিষ্ট সমাজ সেবক বাবু নিরঞ্জন সাহা নিরু, শিক্ষক শ্রী অমলেন্দ্র কর। সমিতির সদস্য বাবু বকুল চক্রবর্ত্তীর গীতাপাঠের মাধ্যমে শুরু হয়। অনুষ্ঠানে সমিতির সদস্যদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন, সর্বশ্রী সত্যজিৎ বসাক, সমীরণ চক্রবর্তী, বিপুল ভট্টাচার্য, অশোক কুমার দাস, সুজিত কুমার দেব, যীশু রঞ্জন কর, শাওন চক্রবর্ত্তী প্রমুখ।
অভিবাবক ও শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে অনুভ‚তি প্রকাশ করেন- অভিভাবক কাজল রঞ্জন দত্ত ও লক্ষী নারায়ণ কর এবং শিক্ষার্থী প্রাণণ জ্যোতি দেব, সোনালী দেব ও তনু রাণী শীল। অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ অংশগ্রহণকারী সকলের হাতে উৎসাহ উপহার হিসেবে ক্রেস্ট, খাতা-কলম, সনদপত্র এবং গাছের চারা এবং সমিতির শুভাকাঙ্কী বিশিষ্ট ঠিকাদার পিন্টু চন্দ্র দেব গীতা গ্রন্থ তুলে দেন। অনুষ্ঠানে মানপত্র পাঠ করেন সমিতির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক পদ্মা রায় চৌধুরী। সঞ্চালকের দায়িত্বে ছিলেন সত্যজিৎ বসাক। অনুষ্ঠানটির সার্বিক তত্ত¡াবধানে ছিলেন, সমিতির সদস্য প্রদীপ রঞ্জন কর ও বাবু কেশব চন্দ্র কর।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.