রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন

প্রথম টেস্টে মাঠে নামছে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড

 ডেস্ক রিপোর্ট  টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্গত দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে এতদিন নিউজিল্যান্ডে অবস্থান করছিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। অবশেষে ফুরালো অপেক্ষা। প্রথম ম্যাচের মাধ্যমে শুরু হতে যাচ্ছে সিরিজ। শনিবার বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় কিউইদের বিপক্ষে মাঠে নামবে মুমিনুল হক বাহিনী।

বিশ্বকাপের আগে টাইগার ক্রিকেটাররা ভালো ফর্মে থাকলেও এখন হতাশা মধ্যে কাটছে তাদের সময়। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার পর বিশ্বকাপে অংশ নেয় টাইগাররা। কিন্তু সেখানে প্রথমপর্বের প্রথম ম্যাচে হোঁচট খায় দল, স্কটিশদের কাছে হারে ৬ রানে। অবশ্য পরের দুই ম্যাচে স্বাগতিক ওমান এবং পাপুয়া নিউগিনির কাছে জিতে কোনোমতো মূলপর্বে উঠে রাসেল ডোমিঙ্গোর শিষ্যরা।

কিন্তু সেরা টুয়েলভে উঠে হয়নি কোনো লাভ। সেমিফাইনালে উঠার লড়াই পাঁচটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু হেরেছে সবকটিইতেই। আর তাতেই বিশ্বকাপের স্বপ্ন ভঙ্গ হয় লাল-সবুজের প্রতিনিধিত্বকারীদের। বিশ্বকাপ শেষ হতে না হতেই ঘরের মাটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি এবং দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলে স্বাগতিকরা। কিন্তু ফলাফল একই! প্রথমে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে, পরে হেরেছে সবকটি টেস্ট ম্যাচেও।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ শেষ করেই নিউজিল্যান্ডে পাড়ি জমায় মুমিনুল হক বাহিনী। এখানে টেস্ট চ্যামপিয়নশিপের দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। হারের বৃত্তে থাকা টাইগাররা নিউজিল্যান্ডের খুঁজছে স্বস্তির জয়। কিন্তু কিউইদের মাটিতে বরাবরই বাজে রেকর্ড রয়েছে বাংলাদেশের। এখন পর্যন্ত তিন ফরম্যাটের কোনোটাতে কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি তারা।

কিন্তু তাতেও কিছু যাই আসে বলে জানান বাংলাদেশের টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক। শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল বলেন, ‘আগের রেকর্ড অতীত হয়ে গেছে, এটা নিয়ে ঘাটাঘাটি করে কোনো লাভ হবে না। ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তাভাবনা না করাই ভালো। সবসময় আশাব্যাঞ্জক ও ইতিবাচক চিন্তা করা উচিত।’ তিনি আরও বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডে অবশ্যই অনেক বেশি চ্যালেঞ্জ থাকবে। আগে থেকেই যদি নেতিবাচক চিন্তা করেন তাহলে ভালো ফলাফল আসবে না। যত চ্যালেঞ্জ থাকুক, আশাবাদী থাকা গুরুত্বপূর্ণ।’

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের পক্ষে এখন পর্যন্ত মোট ১৫টি টেস্ট ম্যাচে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ দল। এর মধ্যে কোনো ম্যাচেই জয় পায়নি টাইগাররা। তিন ম্যাচ ড্র করেছে, অবশ্য সবগুলো বাংলাদেশে। আর বাকি ১২টি ম্যাচ জিতেছে ক্যাপ ক্ল্যাপসরা।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.