মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:১৫ অপরাহ্ন

খবরের শিরোনাম:
শায়েস্তাগঞ্জ ইন্টারনেট ব্যবসা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক ভিডিওকলে মাধবপুরের রেহানাকে বাঁচানোর আকুতি, ‘আমি আর সহ্য করতে পারতেছি না’ মৌলভীবাজারে চা-শ্রমিকের ছেলের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার নবীগঞ্জ উপজেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির মাসিক সভায় এমপি কেয়া চৌধুরী আড়াই কোটি টাকার সার-বীজ বিনামূল্যে বিতরণ সার চাওয়ায় কৃষকদের হত্যা করে বিএনপি -এমপি আবু জাহির উপজেলা নির্বাচনে নবীগঞ্জে ১৯ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা নিয়মিত খেলাধূলা আয়োজনে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে-এমপি আবু জাহির দেশে হিটস্ট্রোকে আরও ৩ জনের মৃত্যু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ব্যাটারি কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৯ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল

মা বাবাকে হারিয়ে কান্না থামছে না কী হবে অবুঝ দুই শিশু রায়হান-ফরহাদের

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চুনারুঘাটে গলায় ওড়না পেঁচানো স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। যদিও কীভাবে এ ঘটনা ঘটেছে এখনও তা জানতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পুলিশের ধারণা তারা দুজনে আত্মহত্যা করেছেন। মা বাবাকে হারিয়ে কান্না থামছে না
অসহায় দুই শিশু সন্তানের। তাদের ভবিষৎ নিয়ে দুশ্চিন্তায় দাদা-দাদি।
চুনারুঘাটের নরপতি গ্রামের আব্দুর রউফ ও আলেয়া দম্পতির মরদেহ শুক্রবার দুপুরে উদ্ধার করে পুলিশ।
ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল শনিবার দুপুরে মরদেহ দুটি পরিবারে কাছে হস্থান্তর করা হয়। পরে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। রউফ ও আলেয়া দম্পতির ১০ বছরের ছেলের নাম রায়হান আহমেদ ও ছোট ছেলে ফরহাদ মিয়ার বছর পাঁচ বছর।
রায়হান ও ফরহাদ বর্তমানে দাদা-দাদির কাছে রয়েছে। অর্থিক অবস্থা খারাপ হওয়ার কারণে তাদের ভরণপোষণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তারা।
শিশুদের দাদা আবুল হোসেনের বয়স প্রায় ৫৬ এবং দাদি মোয়ারা বেগমের বয়স ৪৫ বছর। বার্ধক্যজনিত কারণে দুজনেই বাড়ির বাইরে কোনো কাজ করতে পারেন না। শিশুদের বাবা আব্দুর রউফ রিকশা চালিয়ে সংসার চালাতেন। মাঝে মধ্যে রিকশা চালান দাদা।
দাদি মনোয়ারা বেগম বলেন, ‘রায়হান তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। এখন তার লেখাপড়া করানো দূরের কথা তিনবেলা খেতে দেয়া আমাদের পক্ষে কঠিন। বয়সের কারণে আমি এবং তাদের দাদাও কোনো কাজ করতে পারি না। এখন তাদেরকে কীভাবে বুঝিয়ে রাখব, কে দেখাশোনা করবে তাও জানি না।’
শিশুদের দাদা আবুল হোসেন বলেন, ‘চারপাশে এখন শুধু অন্ধকার। একদিকে ছেলে ও ছেলের বউয়ের চলে যাওয়া, অন্যদিকে নাতি-নাতনির ভবিষ্যৎ। কী করব কিছু বুঝতে পারছি না।’
এ ঘটনায় মৃত আব্দুর রউফের বাবা আবুল হোসেন বাদী হয়ে চুনারুঘাট থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।
চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী আশরাফ জানান, এখনও এ ঘটনার কোন রহস্য উদঘাটন সম্ভব হয়নি। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে এলে বিস্তারিত জানা যাবে।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.