সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৩:৪৯ অপরাহ্ন

রাজধানীতে কঠোর নিরাপত্তায় তাজিয়া মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আজ ১০ই মহররম। পবিত্র আশুরা। কারবালার শোকাবহ ও হৃদয়বিদারক ঘটনার ঘটনাবহুল এ দিনটি মুসলমানদের কাছে ধর্মীয়ভাবে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। দিবসটি পালনে প্রতিবছরের মতো এ বছরও রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল শুরু করেছে শিয়া মুসলমানরা।

মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) রাজধানীর ইমামবাড়া হোসেনী দালান থেকে সকাল ১০টায় এ তাজিয়া মিছিল শুরু হয়।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে এবারের তাজিয়া মিছিল আজিমপুর, নীলক্ষেত, নিউমার্কেট, সাইন্সল্যাব, জিগাতলা ও ধানমন্ডি ২ নম্বর দিয়ে প্রদক্ষিণ করবে।

আশুরা উপলক্ষে রাজধানীতে বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিলকে কেন্দ্র করে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যরা নিরাপত্তা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া সতর্কাবস্থানে রয়েছেন গোয়েন্দা সদস্যরা।

তবে হোসেনি দালান ছাড়াও মোহাম্মদপুর, মিরপুর, বকশিবাজার, লালবাগসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকেও তাজিয়া মিছিল বের হওয়ার কথা রয়েছে।

হাদিস শরীফে একক দিন হিসেবে আশুরার যে তাৎপর্য বর্ণিত হয়েছে তার সারসংক্ষেপ হলো- এ পবিত্র দিনে আল্লাহ্‌ তায়ালা অসংখ্য নবী-রাসুল দুনিয়ার মানুষের কল্যাণে বিভিন্ন সময় আবির্ভূত করেছেন। আশুরার দিনে আল্লাহ্‌ সুবহানাহু তায়ালা আসমান-জমিন, পাহাড়-পর্বত, তারকারাজি, আরশ-কুরসি, লওহে মাহফুজ ও ফেরেশতাদের সৃষ্টি করেন। এদিন আদম, হাওয়াকে (আ.) সৃষ্টি করা হয়েছে।

উম্মতে মুহাম্মদীর কাছে এদিনটি আরও একটি বিশেষ কারণে অবিস্মরণীয়। ৬১ হিজরির এদিনে নুরনবী হযরত মুহম্মদ (সা.) এর প্রাণপ্রিয় দৌহিত্র, হযরত আলী-ফাতিমা (রা.) এর দ্বিতীয় পুত্র ইমাম হুসাইন (রা.) এবং নবী পরিবারের প্রায় সকল পুরুষ ও সদস্য কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে মর্মান্তিকভাবে শাহাদাতবরণ করেন। এ হৃদয় বিদারক ঘটনা আশুরাকে দান করেছে এক নতুন তাৎপর্য। বস্তুত কারবালার ঘটনাটি ছিল হক ও বাতিলের সংঘাত।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.