সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০২ অপরাহ্ন

শায়েস্তাগঞ্জে চরহামুয়ায় খোয়াই নদীতে ৪০ বছরেও সেতু নির্মাণ হয়নি॥ ৩০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ।

শায়েস্তাগঞ্জ প্রতিনিধি: শায়েস্তাগঞ্জ চরহামুয়া খোয়াই নদীর উপর সেতু নির্মাণ ৪০ বছরেও বাস্তবায়ন করা হয়নি। একটি সেতুর অভাবে শায়েস্তাগঞ্জ ও হবিগঞ্জের ১৫টি গ্রামের প্রায় ৩০ হাজার মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। সেতুর অভাবে ব্যবসা বানিজ্য শিক্ষা চিকিৎসা ও কৃষি ক্ষেত্রে লোকজনকে চরম ভুগান্তি পোহাতে হয়। একই কারণে এলাকার আর্থসামাজিক অবস্থা খুবই নাজুক। সেতু না থাকায় বর্ষাকালে একটি মাত্র ডিঙ্গি নৌকা দিয়ে ঝুকি নিয়ে চলাচল করতে হয় ওই এলাকার মানুষকে। মানুষের সাথে সাথে গৃহ পালিত পশুদের জীবন বাজি রেখে পারাপার হচ্ছে। শায়েস্তাগঞ্জ পৌর শহর থেকে ১ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত খোয়াই ঘাটটি। এ যেন আলোর নিচে অন্ধকারের মতন অবস্থা। শায়েস্তাগঞ্জ ও হবিগঞ্জের চরহামুয়া, বনগাও, নোয়াবাদ, বাতাহার, কলিমনগর, সুঘর, গংগানগর, রামনগর, আদ্যপাশা, কালিগঞ্জ, বনদক্ষিণ, সুলতানশী, কামারপাড়াসহ ১৫টি গ্রামের শতশত স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রী, ব্যবসায়ী, চাকুরীজীবি, কৃষকসহ নারী শিশু বৃদ্ধা বৃদ্ধ প্রতিদিনই দৈনন্দিন কাজের জন্য শায়েস্তাগঞ্জ শহরে আসতে হয়। চরহামুয়া খোয়াই ঘাটে আসার পর দাড়িয়ে থাকতে হয় দীর্ঘক্ষণ। একটি ডিঙ্গি নৌকার দ্বারা নদী পার হতে হয় সবাইকে। তাও আবার প্রতিজন ২ টাকা করে দিতে হয়। অনেক সময় তাড়াহুড়া করে উঠতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটে ওই ঘাটে। ৩৮ বছর হলেও ওই স্থানে সেতু নির্মাণ না হওয়ায় ক্ষোভ বিরাজ করছে এলাকার মানুষের মাঝে। প্রতি বছরই ভোটের সময় এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, ইউনিযন চেয়ারম্যান, ইউপি পুরুষ ও মহিলা সদস্যরা সেতু করে দিবেন বলে প্রতিশ্র“তি দিয়ে ভোট নেন। অথচ এ পর্যন্ত কোন রাজনীতিকদলই তাদের প্রতিশ্র“তি রক্ষা করেনি। এদিকে সেতুটি নির্মাণ না হওয়ায় জীবনের ঝুকি নিয়ে নদী পারাপার হচ্ছেন ওই এলাকার লোকজনদের। চরহামুয়াসহ ১৫টি গ্রামের মানুষের মধ্যে রয়েছে ব্যবসা বানিজ্য, স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসা ছাত্র/ছাত্রীদের শিক্ষা ও চিকিৎসার একমাত্র রাস্তা এই খেয়াই ঘাটটি। কিন্তু এ সেতু নির্মিত না হওয়ায় প্রতিদিন এলাকার শত শত মানুষকে জীবনের ঝুকি নিয়ে পারাপার হতে হচ্ছে। খোয়াই ঘাটে বর্ষা থেকে শুরু করে ১২ মাসেই দুর্ভোর্গের শিকার হচ্ছেন ওই এলাকাবাসীরা। এ ব্যাপারে স্কুল ছাত্র সাইফুল ইসলাম জানান এখানে সেতু না থাকায় জীবনের ঝুকি নিয়ে স্কুলেও প্রাইভেটে যেতে হয়। পরীক্ষার সময় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়। অনেক দিন পরীক্ষার সময় অর্ধেক চলে যায়। এলাকার তরুণ কৃষক জামাল মিয়া জানান এখানে সেতু না থাকায় অনেক রকমের শাক সবজী চাষ করেও ভাল দামে বিক্রি করতে পারিনা। তার একমাত্র কারণ যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ থাকার দরুন। ভোক্তভোগী মহলের দাবী অচিরেই এ খোয়াই ঘাটটিতে সেতু নির্মাণ করার।

 

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.