রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

খবরের শিরোনাম:

সিলেটে ভাষা শহিদদের ফুলেল শ্রদ্ধা, উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিলেট ফুলেল শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় পালিত হচ্ছে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সর্বস্তরের জনতার ঢল নামে।

রাত ১২টা ১ মিনিটের সময় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন পর্ব শুরু হয়। এরপর নতুন ক্রম অনুসারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

পরে একে একে বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি অব পুলিশ সিলেট রেঞ্জ, জেলা প্রশাসন, মেট্রোপলিটন পুলিশ, ডিআইজি প্রিজন, জেলা পরিষদ, ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সরকারি অফিস, রাজনৈতিক ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

একুশের প্রথম প্রহরে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনকে কেন্দ্র করে সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদমিনার ও আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলে পুলিশ প্রশাসন। নগরের কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে বসানো হয় পর্যাপ্ত সিসি ক্যামেরা। রাত ১১টার পর থেকে নগরের চৌহাট্টা পয়েন্ট থেকে শহিদমিনারমুখি জিন্দাবাজার পয়েন্ট পর্যন্ত সড়কের যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এদিকে করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি বিধিনিষেধ থাকলেও তা বাস্তবায়নে ব্যর্থ হয় প্রশাসন। শুরুতে বিধিনিষেধ অনুযায়ী সবার মাস্ক নিশ্চিত করলেও কারো কাছে দুই ডোজ করোনা টিকার কার্ড চাইতে দেখা যায়নি। কোন সংগঠনের ব্যনারে ৫ জনের অধিক মানুষ শহিদমিনারে আসার অনুমতি না থাকলেও তা পালন করেনি কোন সংগঠন। এসময় প্রতিটা রাজনৈতিক সংগঠনের ব্যানারে বিপুল সংখ্যক লোকসমাগম দেখা যায়। শুধু তাই নয়, প্রশাসনের সামনের সারির কর্মকর্তাদের শ্রদ্ধা নিবেদনের পরই ভেঙে যায় শৃঙ্খলা বলয়। এসময় চরম বিশৃঙ্খলা আর ধাক্কাধাকি করে শহিদ বেদিতে ফুল দিয়ে মাত্র আধা ঘন্টার মধ্যেই অনেকটা খালি হয়ে যায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার।

অপরদিকে একুশে ফেব্রুয়ারি সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী ক্বিন ব্রিজ সংলগ্ন সারদাহল চত্বর থেকে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও নাট্য পরিষদের আয়োজনে একুশের প্রথম প্রভাতফেরি বের হবে। কণ্ঠে একুশের গান আর হাতে বর্ণমালা ও ফুল নিয়ে প্রভাতফেরিতে অংশ নেবে নাট্য সংস্কৃতিকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রণি-পেশার মানুষ।

এছাড়া দিনব্যাপী সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের পাশাপাশি সুবিধাজনক সময়ে সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রার্থনা, সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসনের সম্মেলনকক্ষে আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণ, সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আলোচনাসভা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরষ্কার বিতরণ করা হবে। পাশাপাশি থাকবে আরও নানা আয়োজন।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.