সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:১৪ অপরাহ্ন

সিলেটে সংহতি সমাবেশে ব্যাটারিচালিত রিকশার লাইসেন্স দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রিকশা, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চালক সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা এবং বাসদ বরিশাল জেলার সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্তী,  ‘ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইকের লাইসেন্স দিতে হবে। ৫০ লাখ পরিবহন শ্রমিকের জীবিকা এর সঙ্গে জড়িত। খোঁড়া যুক্তি দিয়ে যদি ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধ করা হয় তাহলে সারাদেশে দূর্বার আন্দোলন গতে তোলা হবে।’

আজ রবিবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইকের লাইসেন্সের দাবিসহ পাঁচ দফা দাবিতে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত সংহতি সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট ও রিকশা, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চালক সংগ্রাম পরিষদ এ সমাবেশের আয়োজন করে।

সমাবেশে ডা. মনীষা চক্রবর্তী অবিলম্বে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইকের লাইসেন্স দেওয়া দাবি জানিয়ে বলেন, ‘বিপুল সংখ্যক মানুষের জীবন-জীবিকার কথা ভুলে গেলে চলবে না। খোঁড়া যুক্তি দিয়ে যদি ব্যাটারি চালিত যান বন্ধ করা হয় তাহলে সিলেটসহ সারাদেশে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।’

শ্রমিক ফ্রন্ট সিলেট জেলার যুগ্ম আহবায়ক প্রণব জ্যোতি পালের সভাপতিত্বে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন রিকশা, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চালক সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব ইমরান হাবিব রুমন, বাসদ সিলেট জেলা সমন্বয় আবু জাফর, জাতীয় শ্রমিক লীগ সিলেট জেলার সভাপতি প্রকৌশলী এজাজুল হক এজাজ, জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল সিলেট জেলা সভাপতি সুরমান আলী, বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলার সমন্বয়ক ও ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) জেলা সভাপতি সিরাজ আহমেদ, সিপিবি সিলেট জেলার নেতা সাতী রহমান, বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন এর জেলা সাধারণ সম্পাদক মোখলেছুর রহমান, বাসদ জেলা সদস্য জুবায়ের আহমেদ চৌধুরী সুমন প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, ‘সকল যানবাহনেই দুর্ঘটনা ঘটে কিন্তু শুধু ব্যাটারিচালিত রিকশার উপর দুর্ঘটনার দায় চাপানো যুক্তিযুক্ত নয়। প্রয়োজনে রিকশার নকশার আধুনিকায়ন করে ব্যাটারিচালিত রিকশাকে লাইসেন্স দিন।

সংহতি সমাবেশে সিলেট নগরের বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে সহস্রাধিক রিকশাচালক অংশ নেন।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.