সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৭:১০ পূর্বাহ্ন

হবিগঞ্জের যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ হবিগঞ্জের বাহুবলে যৌতুকের জন্য স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামী সৈয়দ হেলাল মিয়ার মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক সুদীপ্ত দাশ এ রায় ঘোষণা করেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলায় দুজনকে বেকসুর খালাস দেয় আদালত।

দণ্ডিত ২৪ বছর বয়সী হেলাল মিয়া বাহুবল উপজেলার লাকুড়ীপাড়া গ্রামের সৈয়দ জিতু মিয়ার ছেলে। খালাসপ্রাপ্তরা হলেন- একই গ্রামের সৈয়দ জিতু মিয়ার স্ত্রী সৈয়দা শাহেদা খাতুন ও আব্দুর রহমানের ছেলে তাজুল ইসলাম।

আদালতের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট আবুল হাসিম চৌধুরী মোল্লা মাসুম জানান, ২০১৭ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি বাহুবল উপজেলার বড়গাও গ্রামের আব্দুল হামিদ চৌধুরীর মেয়ে লাভলী আক্তারকে বিয়ে করেন হেলাল। বিয়ের কিছুদিন পর এক লাখ টাকা যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন করেন। যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় একই বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর স্ত্রীকে হত্যা করেন তিনি। পরে লাশ ফেলে বাড়ি থেকে চলে যান স্বামীসহ বাড়ির লোকজন।

এ ঘটনার পরদিন লাভলী আক্তার অসুস্থ হয়ে মারা গেছে বলে বাবার বাড়িতে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে তারা বাড়িতে এসে দেখেন লাশের গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পরে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনার পর ২৮ সেপ্টেম্বর স্বামীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ আদালতে একটি হত্যা মামলা করেন লাভলীর বড় ভাই শাহীন চৌধুরী।

এরপর তদন্ত করে তিনজনের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ২৪ অক্টোবর আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন বাহুবল থানার তৎকালীন এসআই মহরম আলী। রাষ্ট্রপক্ষের ২৩ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মঙ্গলবার আসামির উপস্থিতিতে এ রায় দেয় আদালত।

 

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.