রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০২:২০ অপরাহ্ন

হবিগঞ্জে ভন্ড কবিরাজ আহাদুর রহমান র‌্যাবের খাঁচায়

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বানিয়াচং উপজেলার ইমামবাড়ি বাজার থেকে আহাদুর রহমান নামে এক ভন্ড কবিরাজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এসময় একটি কম্পিউটার, একটি মেমোরি কার্ড, দুইট মোবাইল ও অন্যান্য সরঞ্জামাদী উদ্ধার করা হয়েছে।
শুক্রবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিতিত্তে অভিযান চালিয়ে ইমামবাড়ি বাজারে ভন্ড কবিরাজের আস্তায় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার দুই সহযোগি র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। গ্রেফতাকৃত আহাদুর রহমান বানিয়াচং উপজেলার কুর্শা খাগাউড়া গ্রামের শোল্লুক মিয়ার পুত্র।
সূত্রে জানা যায়, ভন্ড কবিরাজ আহাদুর রহমান পড়াশুনা করেছেন ৫ম শ্রেনি পর্যন্ত। কবিরাজি করার আগে হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারে বিভিন্ন হোটেল রেষ্টুরেন্টে কাজ করতেন। গত দুই বছর যাবত তাবিজ, পানি পড়া, সুতা পড়া ও গাছের জরি দিয়ে কবিরাজি জগতে প্রবেশ করেন। মহিলাদেরকে প্রতারনার ফাদে ফেলে চিকিৎসার নামে অশ্লীল ভিডিও ধারন করে মোটা অংকের টাকা আদায় করতেন। এছাড়াও অশ্লীল ভিডিও গুলো মহিলাদের স্বামীর মোবাইলে ও আত্মীয় স্বজনদের ইমো ও মেসেঞ্জারে প্রেরন করে মোটা অংকের টাকা দাবি করত।
ভন্ড কবিরাজ আহাদুর রহমানের বরাত দিয়ে র‌্যাব জানায়, সে এ পর্যন্ত ৩০-৪০ জন মহিলার অশ্লীল ছবি ধারন করে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
র‌্যাবের জিজ্ঞাসে ভন্ড কবিরাজ জানান, কবিরাজিতে তার কোন শিক্ষা নেই, সে ইউটিউব দেখে দেখে যাদু মন্ত্র শিখে পেশা হিসেবে বেচে নিয়েছে।
র‌্যাব শায়েস্তাগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লেঃ মোহাম্মদ নাহিদ হাসান জানান, ওই ব্যক্তি কবিরাজি চিকিৎসার নামে বিভিন্ন ভোক্তভুগি মহিলাদেরকে অশ্লীল ভিডিও ধারন করে প্রতারনার মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা হাতি নিচ্ছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
তিনি বলেন, ভুক্তভোগী মহিলাদের চিকিৎসার কথা বলে মোবাইলের ইমোতে কথা বলত এবং তাদের অগোচরে বিশেষ সফটওয়ার দিয়ে ভিডিও ধারণ করত এভং এই ছবি ও ভিডিও মেমোরিকার্ডে এবং কম্পিউটারে রেখে দিতো। আসামীর বিরুদ্ধে আইনানু ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ##

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.