সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ন

খবরের শিরোনাম:

২৫ বছরেই আচমকা অবসরে টেনিসের ‘নাম্বার ওয়ান’

ডেস্ক রিপোর্ট  মাত্র ২৫ বছর বয়সেই টেনিস থেকে আচমকা অবসর নিলেন অ্যাশলেইঘ বার্টি। ডব্লিউটিএর এক নম্বর র‌্যাংকিংধারী খেলোয়াড় তিনটি গ্র্যান্ড স্লামও জিতেছেন। ৪৪ বছরে প্রথম অস্ট্রেলিয়ান হিসেবে দেশের গ্র্যান্ড স্লাম জয়ের দুই মাস যেতেই র‌্যাকেট তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি।

নারী টেনিস র‌্যাংকিংয়ে টানা ১১৪ সপ্তাহ ধরে এক নম্বরে বার্টি। ২৬তম জন্মদিন উদযাপনের এক মাস আগে বিদায় বললেন টেনিসকে।

আজ বুধবার (২৩ মার্চ) ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা এক ভিডিওতে বললেন, ‘আমি খুব খুশি এবং আমি প্রস্তুত। এই মুহূর্তে আমি কেবল জানি, আমার হৃদয়ে যা হচ্ছে, একজন ব্যক্তি হিসেবে আমার জন্য এটা সঠিক।’

অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ের দুই মাস পর অবসর নেওয়া বার্টি কাঁপা কাঁপা গলায় আরো জানান, তিনি এখন অন্য স্বপ্নের পেছনে ছুটতে চান। টেনিসে সেরা হতে হলে তার যে ইচ্ছাশক্তি প্রয়োজন, সেটা আর নেই মনে করছেন তিনি।

বার্টি বললেন, ‘এই প্রথমবার আমি সত্যিই চিৎকার করে বলছি, হ্যাঁ, এটা বলা কঠিন। আমার শারীরিক সমস্যা নেই, মানসিক চাওয়া। শীর্ষ পর্যায়ে চ্যালেঞ্জ নিতে যা প্রয়োজন সেটা আর নেই। আমার সবটুকু দেওয়া হয়ে গেছে।’

টেনিস থেকে চলে যাওয়া বার্টির জীবনে এই প্রথম নয়। ২০১১ সালে ১৫ বছর বয়সে উইম্বলডন জুনিয়র চ্যাম্পিয়ন ২০১৪ সালে প্রায় দুই বছরের জন্য টেনিস থেকে দূরে ছিলেন চাপ ও ভ্রমণ ক্লান্তির কারণে।

পরে অস্ট্রেলিয়ায় ক্রিকেট নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন এবং তারপর একসময় আবারো র‌্যাকেট তুলে নেন হাতে। ভিন্ন তিনটি কোর্টের গ্র্যান্ড স্লাম জেতেন। ২০১৯ সালে ক্লে কোর্টের ফ্রেঞ্চ ওপেন জেতেন, গত বছর উইম্বলডনে ঘাসের কোর্টেও নেন ট্রফি। আর এই জানুয়ারিতে মেলবোর্ন পার্কের হার্ড কোর্টে কাটানা চার দশকেরও বেশি সময়ের শিরোপা খরা। ৪৪ বছরে প্রথম অস্ট্রেলিয়ান হিসেবে নিজ দেশের গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হন।

ট্যুর লেভেলে সব মিলিয়ে ১৫টি একক ও ১২টি দ্বৈত শিরোপা জেতেন ২০১০ সালে পেশাদার টেনিসে নাম লেখানো বার্টি। সব মিলিয়ে ১২১ সপ্তাহ র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে ছিলেন তিনি।

এর আগে একমাত্র নারী হিসেবে ডব্লিউটিএ র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা অবস্থায় অবসর নেন জাস্টিন হেনিন, ২০০৮ সালের মে মাসে।

এই নিউজটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

© shaistaganjerbani.com | All rights reserved.