ঢাকা ১০:১৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাল্টা চাষে সফল মাধবপুরের তরুণ উদ্যোক্তা সফিউল বর খোকন

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরের ধর্মঘরের সফিউল বর খোকন নামের এক তরুণ উদ্যোক্তা মাল্টা চাষ করে সফল হয়েছেন। তার বাড়ি উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের নিজনগর গ্রামে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পোষ্ট অফিসার হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।

জানা গেছে, তিনি চাকুরির পাশাপাশি উদ্যোক্তা হিসাবে গড়ে তুলেছেন নাভা এগ্রো বহুমুখী ফার্ম। উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী নিজনগর গ্রামে ২৫০ শতক জমিতে মাল্টা চাষের সিদ্ধান্ত নেন। এজন্য তিনি স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তাদের সহায়তা নেন। কৃষি কর্মকর্তারা জমিগুলো পরিদর্শন করে এখানে মাল্টা চাষ হবে। তিনি নিজ উদ্যোগে শুরু করেন মাল্টার চাষ। ২০২১ সালে পরীক্ষামূলকভাবে নিজ উদ্যোগে বারি-১ ১২০০ মাল্টার চারা রোপণ তাক লাগিয়ে দেন সবাইকে।

গাছ রোপণের পরের বছরই ফলন পেতে শুরু করেন সফিউল বর খোকন। মাল্টার পাশাপাশি তার রয়েছে মাছের ঘের, মুরগি, গরু খামার। নতুন করে তিনি আপেল এবং রামবুটান চাষ শুরু করেছেন। শুধু সফিউল বর খোকনই নন, বর্তমানে মাল্টা চাষের প্রতি ঝুঁকেছেন এ উপজেলার অনেক চাষি ও বেকার যুবকরা।

মাল্টা চাষে কোনো এখন পর্যন্ত সমস্যায় পড়তে হয়নি বলে জানিয়েছেন সফিউল বর খোকন। এ কারণে মাল্টা চাষ আরও সম্প্রসারণের আশা করছেন তিনি। এ ছাড়া স্থানীয় বাজারেও মাল্টার অনেক চাহিদা রয়েছে। দিন দিন এ চাহিদা বাড়ছে।

তার মাল্টা বাগানে কাজ করেন এলাকার ৮ থেকে ১০ জন বেকার যুবক। প্রথমে পাইকারি বিক্রি করলেও বর্তমানে তিনি ১০০ টাকা কেজি দরে খুচরা বিক্রি শুরু করেছেন।

সফিউল বর খোকন বলেন, আমি যখন বাগানটির কার্যক্রম শুরু করি, তখন আমাকে এলাকার লোকজন আমাকে হতাশ করেছে। অনেকে আমাকে অনেক ধরনের কথা বলেছে। কৃষি অফিস থেকে আমাকে কিছু পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করেছে। এখন আমার বাগানে ফলন হয়েছে ভালো।

মাধবপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আল মামুন হাসান বলেন, সফিউল বর খোকন মাল্টা বাগান করে অল্প সময়ে পেয়েছেন প্রত্যাশিত সাফল্য। এখানকার মাটি ও আবহাওয়া মাল্টা চাষের জন্য খুবই উপযোগী।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

আপডেট সময় ১২:০৫:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ জুলাই ২০২৪
৬ বার পড়া হয়েছে

মাল্টা চাষে সফল মাধবপুরের তরুণ উদ্যোক্তা সফিউল বর খোকন

আপডেট সময় ১২:০৫:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ জুলাই ২০২৪

হবিগঞ্জের মাধবপুরের ধর্মঘরের সফিউল বর খোকন নামের এক তরুণ উদ্যোক্তা মাল্টা চাষ করে সফল হয়েছেন। তার বাড়ি উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের নিজনগর গ্রামে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পোষ্ট অফিসার হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।

জানা গেছে, তিনি চাকুরির পাশাপাশি উদ্যোক্তা হিসাবে গড়ে তুলেছেন নাভা এগ্রো বহুমুখী ফার্ম। উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী নিজনগর গ্রামে ২৫০ শতক জমিতে মাল্টা চাষের সিদ্ধান্ত নেন। এজন্য তিনি স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তাদের সহায়তা নেন। কৃষি কর্মকর্তারা জমিগুলো পরিদর্শন করে এখানে মাল্টা চাষ হবে। তিনি নিজ উদ্যোগে শুরু করেন মাল্টার চাষ। ২০২১ সালে পরীক্ষামূলকভাবে নিজ উদ্যোগে বারি-১ ১২০০ মাল্টার চারা রোপণ তাক লাগিয়ে দেন সবাইকে।

গাছ রোপণের পরের বছরই ফলন পেতে শুরু করেন সফিউল বর খোকন। মাল্টার পাশাপাশি তার রয়েছে মাছের ঘের, মুরগি, গরু খামার। নতুন করে তিনি আপেল এবং রামবুটান চাষ শুরু করেছেন। শুধু সফিউল বর খোকনই নন, বর্তমানে মাল্টা চাষের প্রতি ঝুঁকেছেন এ উপজেলার অনেক চাষি ও বেকার যুবকরা।

মাল্টা চাষে কোনো এখন পর্যন্ত সমস্যায় পড়তে হয়নি বলে জানিয়েছেন সফিউল বর খোকন। এ কারণে মাল্টা চাষ আরও সম্প্রসারণের আশা করছেন তিনি। এ ছাড়া স্থানীয় বাজারেও মাল্টার অনেক চাহিদা রয়েছে। দিন দিন এ চাহিদা বাড়ছে।

তার মাল্টা বাগানে কাজ করেন এলাকার ৮ থেকে ১০ জন বেকার যুবক। প্রথমে পাইকারি বিক্রি করলেও বর্তমানে তিনি ১০০ টাকা কেজি দরে খুচরা বিক্রি শুরু করেছেন।

সফিউল বর খোকন বলেন, আমি যখন বাগানটির কার্যক্রম শুরু করি, তখন আমাকে এলাকার লোকজন আমাকে হতাশ করেছে। অনেকে আমাকে অনেক ধরনের কথা বলেছে। কৃষি অফিস থেকে আমাকে কিছু পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করেছে। এখন আমার বাগানে ফলন হয়েছে ভালো।

মাধবপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আল মামুন হাসান বলেন, সফিউল বর খোকন মাল্টা বাগান করে অল্প সময়ে পেয়েছেন প্রত্যাশিত সাফল্য। এখানকার মাটি ও আবহাওয়া মাল্টা চাষের জন্য খুবই উপযোগী।